যীশু কি তাঁর মৃত্যু ও পুনরুত্থানের মাঝখানে নরকে গিয়েছেন?



প্রশ্ন: যীশু কি তাঁর মৃত্যু ও পুনরুত্থানের মাঝখানে নরকে গিয়েছেন?

উত্তর:
এই প্রশ্ন নিয়ে নানারকম মতদ্বৈধতা রয়ে গেছে। ধারণাটি প্রাথমিকভাবে প্রৈরিতিক বিশ্বাস সূত্র থেকে এসেছে, যেখানে বর্ণনা করা হয়েছে, “তিনি নরকের পাতালে গিয়েছেন।” তাছাড়া, শাস্ত্রেরও কিছু কিছু পদ রয়েছে, যা অনুবাদের মধ্য দিয়ে বর্ণনা করা হয়েছে যে যীশু “নরকে” গিয়েছেন। এই বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করতে হলে প্রথমেই গুরুত্ব সহকারে আমাদের বুঝতে হবে, মৃতদের স্থান সম্পর্কে বাইবেল কি বলে।

হিব্রু শাস্ত্র অনুসারে “মৃতদের স্থান” বলতে যে শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে তা হচ্ছে ‘সিয়োল’। সহজভাবে তার মানে হচ্ছে “মৃতদের স্থান” অথবা ‘যেখানে মৃত আত্মা বা প্রাণ থাকে’। গ্রীক নতুন নিয়মে নরক বলতে যে শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে, তা হচ্ছে ‘হেডেস’, যার মানেও “মৃতদের স্থান”। নতুন নিয়মের অন্যান্য স্থানে সিয়োল বা হেডেস বলতে এমন একটা অস্থায়ী জায়গা বোঝায় যেখানে আত্মা বা প্রাণ চুড়ান্ত পুনরুত্থান ও বিচারের জন্য অপেক্ষা করে থাকে। প্রকাশিত বাক্য ২০:১১-১৫ পদে এই দুটোর পার্থক্য স্বচ্ছভাবে প্রকাশ করা হয়েছে। নরক (আগুনের হ্রদ) হচ্ছে হারানো আত্মাদের জন্য চিরস্থায়ী এবং চূড়ান্ত থাকবার জায়গা। হেডেস হচ্ছে সাময়িকভাবে থাকবার জায়গা। তাহলে, যীশু নরকে যান নাই, কারণ নরক হচ্ছে ভবিষ্যতের চূড়ান্ত স্থান, শুধুমাত্র সাদা সিংহাসনের মহা বিচার শেষে তা কার্যকর হবে (প্রকাশিত বাক্য ২০:১১-১৫ পদ)।

সিয়োল বা হেডেস দুইভাগে বিভক্ত একটা স্থান বলা যেতে পারে (মথি ১১:২৩, ১৬:১৮; লূক ১০:১৫, ১৬:২৩; প্রেরিত ২:২৭-৩১ পদ দ্রষ্টব্য), যেখানে উদ্ধার প্রাপ্ত এবং হারানো উভয়েই থাকবে। উদ্ধারপ্রাপ্তদের থাকবার জায়গাকে বলা হয় “পরমদেশ” এবং “অব্রাহামের কোলে”। উদ্ধারপ্রাপ্ত এবং হারানোদের মধ্যে রয়েছে এক “বিরাট ফাঁক” (লূক ১৬:২৬ পদ)। যীশু যখন স্বর্গে উঠে যান তখন তিনি পরমদেশে থাকা সকলকে(বিশ্বাসীদের) তাঁর সাথে নিয়ে যান (ইফিষীয় ৪:৮-১০ পদ)। সিয়োল বা হেডেসের হারানো আত্মাদের পাশটা আগের মতই থেকে যাচ্ছে। সকল অবিশ্বাসী মৃতেরা ভবিষ্যতের চূড়ান্ত বিচারের জন্য সেখানেই অপেক্ষমান থাকবে। তাহলে, যীশু কি সিয়োল বা হেডেসে গিয়েছিলেন? ইফিষীয় ৪:৮-১০ ও ১ পিতর ৩:১৮-২০ পদ অনুসারে তা-ই তো বলা যায়।

গীতসংহিতা ১৬:১০-১১ পদের কিং জেমসের অনুবাদ অনুসারে কিছু মতদ্বৈধতা উঠে আসে, যেখানে বলা হয়েছে, “কারণ তুমি আমার প্রাণ ‘পাতালে’ পরিত্যাগ করবে না, তুমি নিজ সাধুকে ক্ষয় দেখতে দেবে না। তুমি আমাকে জীবনের পথ জ্ঞাত করবে, তোমার সামনে তৃপ্তিকর আনন্দ, তোমার ডান হাতে নিত্য সুখভোগ”। এখানে পাতাল শব্দটা সঠিক অনুবাদ নয় বলা যায়; এখানে সঠিকভাবে পড়তে হলে বলতে হবে, “কবর” অথবা “সিয়োল” বা মৃতস্থান। যীশু তাঁর পাশে থাকা সেই ডাকাতকে বলেছিলেন, “তুমি আজকেই আমার সংগে পরমদেশে উপস্থিত হবে” (লূক ২৩:৪৩ পদ)। যীশুর দেহ কবরে ছিল; তাঁর প্রাণ বা আত্মা সিয়োল বা হেডেসের পরমদেশে গিয়েছিল। তিনি সেখান থেকে সব ধার্মিক মৃতদের উদ্ধার করে পরমদেশ থেকে তাদের স্বর্গে নিয়ে যান। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, অনেক বাইবেল অনুবাদকেরা হিব্রু ও গ্রীক শব্দ “সিয়োল”, “হেডেস” এবং “নরক” যথার্থ সামঞ্জস্য রেখে অথবা সঠিক অনুবাদ করতে পারেন নাই।

কেউ কেউ আবার ধারণা করেন যে, যীশু “নরকে” গিয়েছিলেন অথবা সিয়োল বা হেডেসের কষ্টের স্থানে গিয়েছিলেন যেন পাপের জন্য আরও শাস্তি দিতে পারেন। এই ধারণা সম্পূ্র্ণ বাইবেল বিরোধী। আমাদের স্থানে যীশুর কষ্টভোগ করা এবং মৃত্যুবরণ আমাদের পাপমুক্তির জন্য যথেষ্ট। তাঁর রক্তপাতের জন্যই আমরা পাপ থেকে শুচি হয়েছি (১ যোহন ১:৭-৯ পদ)। যে কারণে তিনি ক্রুশে ঝুলেছিলেন, যেন সমগ্র মানবজাতির পাপের ভার নিজের কাঁধে তুলে নিতে পারেন। তিনি আমাদের জন্য পাপ তুলে নিলেন: “যীশু খ্রীষ্টের মধ্যে কোন পাপ ছিল না; কিন্তু ঈশ্বর আমাদের পাপ তাঁর উপর তুলে দিয়ে তাঁকেই পাপের জায়গায় দাঁড় করালেন, যেন খ্রীষ্টের সংগে যুক্ত থাকবার দরুন ঈশ্বরের পবিত্রতা আমাদের পবিত্রতা হয়” (২ করিন্থীয় ৫:২১ পদ)। এইভাবে পাপের ভার নিজে বহন করা গেৎশীমানী বাগানে পাপের পেয়ালা গ্রহণ করতে ভয়ংকর কষ্টভোগ মূলত তাঁর ক্রুশে মৃত্যুবরণ বুঝানো হয়েছে।

ক্রুশের উপর থেকে যীশু যখন চিৎকার করেছিলেন, “ঈশ্বর আমার, ঈশ্বর আমার, কেন তুমি আমাকে ত্যাগ করেছ?” (মথি ২৭:৪৬ পদ), ঠিক এই সময় তিনি তাঁর পিতার কাছ থেকে আলাদা হয়েছিলেন কারণ তখন তাঁর উপরে পাপের বোঝা ঢেলে দেওয়া হয়েছিল। যখন তিনি তাঁর প্রাণ সমর্পণ করেছিলেন, তখন বলেছিলেন, “পিতা, আমি তোমার হাতে আমার আত্মা তুলে দিলাম” (লূক ২৩:৪৬)। আমাদের স্থানে তাঁর কষ্টভোগ শেষ। তাঁর প্রাণ/আত্মা হেডেসের পরমদেশের পাশে গিয়েছিল। যীশু নরকে যান নাই। তাঁর মৃত্যু সাথে সাথে তাঁর যন্ত্রণা শেষ হয়েছিল। পাপের জন্য পাওনা শাস্তি তিনি পরিশোধ করে দিলেন। তারপর তিনি তাঁর দেহের পুনরুত্থান ও স্বর্গের মহিমায় ফিরে যাবার অপেক্ষা করছিলেন। যীশু কি নরকে গিয়েছিলেন? না, এটাই সত্যি, তিনি সিয়োল/হেডেসে গিয়েছিলেন।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



যীশু কি তাঁর মৃত্যু ও পুনরুত্থানের মাঝখানে নরকে গিয়েছেন?