আমি কি করে ঈশ্বরের সাথে সঠিকভাবে থাকতে পারি?



প্রশ্ন: আমি কি করে ঈশ্বরের সাথে সঠিকভাবে থাকতে পারি?

উত্তর:
ঈশ্বরের সাথে সঠিকভাবে থাকতে হলে প্রথমেই আমাদের জানতে হবে ‘‌বেঠিক’ টা কি? এর উত্তর হচ্ছে পাপ। “ভাল কাজ করে এমন কেউ নেই, একজনও নেই”(গীতসংহিতা ১৪:৩খ পদ)। আমরা ঈশ্বরের আদেশের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছি; “আমরা সবাই ভেড়ার মত করে বিপথে গিয়েছি” (যিশাইয় ৫৩:৬ক পদ)।

এখন দুঃসংবাদ হচ্ছে, পাপের শাস্তি মৃত্যু। “যে পাপ করবে সে-ই মরবে” (যিহিষ্কেল ১৮:৪খ)। কিন্তু সুসংবাদ হচ্ছে, একজন প্রেমিক ঈশ্বর আমাদের পরিত্রাণ বা উদ্ধার করার জন্য আমাদের খুঁজছেন। যীশু তাঁর উদ্দেশ্য ঘোষণা করেছিলেন, “যারা হারিয়ে গেছে তাদের খোঁজ করতে ও পাপ থেকে উদ্ধার করতেই মনুষ্যপুত্র এসেছেন” (লূক ১৯:১০ পদ)এবং তিনি ক্রুশে মৃত্যুবরণ করার সময় তাঁর উদ্দেশ্য সার্থক করতে বলেছিলেন, “শেষ হয়েছে” (যোহন ১৯:৩০ক)।

ঈশ্বরের সাথে সঠিক সম্পর্ক বজায় রাখতে হলে আপনার পাপবোধ থাকতে হবে। তারপর, নম্রভাবে ঈশ্বরের কাছে আপনার পাপ স্বীকার করতে হবে (যিশাইয় ৫৭:১৫ পদ দ্রষ্টব্য) এবং আর পাপ করব না এমন দৃঢ় সংকল্প থাকতে হবে। “কারণ অন্তরে বিশ্বাস করবার ফলে ঈশ্বর মানুষকে নির্দোষ বলে গ্রহণ করেন আর মুখে স্বীকার করবার ফলে পাপ থেকে উদ্ধার করেন” (রোমীয় ১০:১০ পদ)।

বিশেষভাবে যীশুর উৎসর্গীকৃত মৃত্যু এবং তাঁর অলৌকিক পুনরুত্থান বিশ্বাস করলেই তিনি আপনার উদ্ধারকর্তা হবেন; তবে বিশ্বাসের সাথে পাপের জন্য অনুশোচনা অবশ্যই থাকতে হবে। “যদি তুমি যীশুকে প্রভু বলে মুখে স্বীকার কর এবং অন্তরে বিশ্বাস কর যে, ঈশ্বর তাঁকে মৃত্যু থেকে জীবিত করে তুলেছেন তবেই তুমি পাপ থেকে উদ্ধার পাবে” (রোমীয় ১০:৯ পদ)। বাইবেলের অনেক পদ বিশ্বাসের প্রয়োজনীয়তার কথা বলে, যেমন যোহন ২০:২৭; প্রেরিত ১৬:৩১; গালাতীয় ২:১৬; ৩:১১ ও ২৬ এবং ইফিষীয় ২:৮ পদ)।

ঈশ্বরের সাথে সঠিকভাবে চলার মধ্য দিয়ে তিনি আপনার জন্য কি করেছেন তা অনুভব করতে পারবেন। তিনি উদ্ধারকর্তাকে পাঠিয়েছেন, তিনি জীবন উৎসর্গ করে আপনার পাপ বহন করেছেন (যোহন ১:২৯ পদ) এবং তিনি একটা শপথ আপনার কাছে রেখেছেন, “রক্ষা পাবার জন্য যে কেউ প্রভুকে ডাকবে সে রক্ষা পাবে” (প্রেরিত ২:২১ পদ)।

পাপের চেতনা ও ক্ষমা পাবার এক অতুলনীয় দৃষ্টান্ত হারানো ছেলের উপমা গল্পে রয়েছে (লূক ১৫:১১-৩২ পদ দ্রষ্টব্য)। ছোট ছেলেটি তার বাবার সম্পদ লজ্জাজনক পাপ কাজে নষ্ট করেছিল (১৩ পদ)। কিন্তু যখন সে তার ভুল বুঝতে পারল, সে তার বাড়ীতে ফিরে আসতে সিদ্ধান্ত নিল (১৮ পদ)। তার ধারণা, তাকে আর ছেলের মর্যাদা দেওয়া হতে পারে না (১৯ পদ), কিন্তু তার ধারণা ছিল ভুল। বাবা কিন্তু তার ফিরে আসা বিদ্রোহী ছেলেকে আগের মতই ভালবেসেছিলেন (২০ পদ)। তাকে ক্ষমা করা হয়েছিল এবং তার জন্য আমোদ-প্রমোদের আয়োজন করা হয়েছিল (২৪ পদ)। শপথ রক্ষা করতে, এমন কি ক্ষমা করতে ঈশ্বর সত্যিই মংগলময়। “যাদের মন ভেংগে গেছে সদাপ্রভু তাদের কাছে থাকেন; যাদের অন্তর চুরমার হয়ে গেছে তিনি তাদের উদ্ধার করেন” (গীতসংহিতা ৩৪:১৮ পদ)।

যদি আপনি ঈশ্বরের সাথে সঠিকভাবে থাকতে চান, সেজন্য এখানে একটা প্রার্থনার উদাহরণ দেওয়া হল। তবে মনে রাখবেন, এই প্রার্থনা বললে বা অন্য কোন প্রার্থনা বললেই আপনি উদ্ধার পাবেন না। শুধুমাত্র খ্রীষ্টে বিশ্বাস করলেই আপনি পাপ থেকে উদ্ধার পেতে পারেন। এই প্রার্থনাটি ঈশ্বরের কাছে আপনার বিশ্বাসকে প্রকাশ করার এবং আপনাকে পরিত্রাণ বা উদ্ধার করেছেন বলে তাঁকে ধন্যবাদ জানানোর একটা সোজা পথ। ‘ঈশ্বর, আমি জানি আমি আপনার বিরুদ্ধে পাপ করেছি; সেজন্য শাস্তি আমার পাওনা। কিন্তু যীশু খ্রীষ্ট আমার পাওনা শাস্তি নিজেই নিয়েছেন যেন তাঁকে বিশ্বাস করে আমি ক্ষমা পেতে পারি। পরিত্রাণ বা উদ্ধারের জন্য আমি আপনার প্রতি বিশ্বাস রাখি। আপনার অতুলনীয় অনুগ্রহ ও ক্ষমার জন্য এবং অনন্ত জীবন দানের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ! আমেন!’

এগুলো পড়ে আপনি কি খ্রীষ্টের পক্ষে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছেন? যদি নিয়ে থাকেন, তাহলে, ‘আমি আজকে খ্রীষ্টকে গ্রহণ করেছি’ লেখা নীচের বোতামে টিক চিহ্ন দিন।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



আমি কি করে ঈশ্বরের সাথে সঠিকভাবে থাকতে পারি?