অসম বিয়ে সম্বন্ধে বাইবেল কি বলে?



প্রশ্ন: অসম বিয়ে সম্বন্ধে বাইবেল কি বলে?

উত্তর:
পুরাতন নিয়মের আইন-কানুনে আদেশ দেওয়া হয়েছে যেন ইস্রায়েলীরা অসম বিয়ে না করে (দ্বিতীয় বিবরণ ৭:৩-৪)। তবে যাইহোক, প্রাথমিকভাবে এর কারণ কিন্তু গোত্র ভিত্তিক ছিল না, বরং ধর্মীয় কারণ ছিল। ঈশ্বর অসম বিয়ের বিরুদ্ধে আদেশ দিয়েছিলেন, কারণ অন্য অন্য জাতির লোকেরা প্রতিমা পূজা করত এবং মিথ্যা ঈশ্বরের উপাসনা করত। যদি ইস্রায়েল জাতি এইসব প্রতিমা পূজক, মিথ্যা দেব-দেবতায় আসক্ত লোকদের সাথে বিয়ের সম্বন্ধ স্থাপন করে, তাহলে তারা তো ঈশ্বরের কাছ থেকে দূরে সরে যাবে ও ধ্বংস হয়ে যাবে। নতুন নিয়মেও ঠিক একই নীতির অনুশীলন করা হয়েছে, তবে তা ভিন্ন আংগিকে: “তোমরা অবিশ্বাসীদের সংগে একই জোয়ালে কাঁধ দিয়ো না। ন্যায়ের সংগে অন্যায়ের যোগ কোথায়? আলো ও অন্ধকারের মধ্যে কি যোগাযোগ আছে?” (২ করিন্থীয় ৬:১৪)। যেমন, ইস্রায়েলীয়দের (যারা একমাত্র সত্য ঈশ্বরকে বিশ্বাস করে) আদেশ দেওয়া হয়েছিল যেন তারা প্রতিমা পূজকদের মধ্যে বিয়ে না করে। ঠিক তেমনি করে খ্রীষ্টিয়ানদের (যারা একমাত্র সত্য ঈশ্বরকে বিশ্বাস করে) আদেশ দেওয়া হয়েছে যেন তারা অবিশ্বাসীদের মধ্যে বিয়ে না করে। খুব নির্দিষ্ট করে এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়া যায় না, কারণ বাইবেল বলে নাই যে অসম বিয়ে করা ভুল।

যেমন করে মার্টিন লুথার কিং মন্তব্য করেছিলেন, একজন ব্যক্তিকে তার চরিত্র দিয়ে বিচার করা উচিত, তার গায়ের রং দেখে নয়। খ্রীষ্টিয়ানদের জীবনে গোত্র বা গোষ্ঠী বিভেদ করে কোনরকম পক্ষপাতিত্ব চলবে না (যাকোব ২:১-১০)। বিয়ের সংগী নির্বাচনের ক্ষেত্রে একজন খ্রীষ্টিয়ানের সর্ব প্রথমে যীশু খ্রীষ্টে বিশ্বাসী নতুন জন্ম প্রাপ্ত খুঁজে বের করা উচিত (যোহন ৩:৩-৫)। বিয়ের সংগী নির্বাচনের ক্ষেত্রে বাইবেলের মানদন্ড হচ্ছে খ্রীষ্টে বিশ্বাসী একজন, কিন্তু চামড়ার রং দেখে নয়। অসম বিয়ে ভুল কি ঠিক তা গুরুত্বপূর্ণ নয়, কিন্তু প্রজ্ঞা, দূরদৃষ্টি এবং প্রার্থনা গুরত্বপূর্ণ।

অসম বিয়ে বিষয়টা নিয়ে সতর্ক বিবেচনায় যে কারণটা উঠে আসে, তাহল- ভিন্ন গোত্রের মধ্যে বিয়ে হলে আত্মীয়-স্বজনদের পক্ষেও দম্পতিদের মেনে নিতে কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। এমনি অনেক অসম বা মিশ্র জাতির বিয়ের দম্পতিরা তাদের নিজেদের পরিবারের মধ্যেও নানারকম ভেদাভেদ ও উপহাসের কারণ হয়। কোন কোন অসম বিয়ের দম্পতিরা তাদের সন্তানের জন্মের পর পিতামাতা বা নিকট আত্মীয়ের চেয়ে ভিন্নতর চামড়ার রং দেখে ঘাবড়ে যায়। অসম বিয়ে করতে চাওয়া দম্পতিদের এইসব বিষয়ও বিবেচনার মধ্যে রাখতে হবে এবং সেজন্যে প্রস্তুতিও নিতে হবে, আসলেও তারা বিয়ে করবে কি না। তাছাড়া, যদিও বাইবেলে একটি মাত্র প্রতিবন্ধকতা দেখানো হয়েছে, যা একজন খ্রীষ্টিয়ান মেনে নিয়ে বিয়ে করতে পারে, আর তাহল- অন্য ব্যক্তি যদি খ্রীষ্টের দেহরূপ মন্ডলীর সদস্য হয়।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



অসম বিয়ে সম্বন্ধে বাইবেল কি বলে?