ঈশ্বর কি আজকের দিনেও আমাদের সাথে কথা বলেন?



প্রশ্ন: ঈশ্বর কি আজকের দিনেও আমাদের সাথে কথা বলেন?

উত্তর:
পবিত্র বাইবেলে প্রমাণ রয়েছে যে, ঈশ্বর অনেকবার লোকদের সাথে কথা বলেছেন (যাত্রা পুস্তক ৩:১৪; যিহোশূয় ১:১; বিচারকর্তৃগণ ৬:১৮; ১ শমূয়েল ৩:১১; ২ শমূয়েল ২:১; ইয়োব ৪০:১; যিশাইয় ৭:৩; যিরিমিয় ১:৭; প্রেরিত ৮:২৬; ৯:১৫ শুধু কয়েকটা উদাহরণ মাত্র)। বাইবেল এমন কোন কারণ দেখায় না যে, ঈশ্বর লোকদের কাছে স্পষ্ট ভাষায় কথা বলতে পারেন না। আমাদের মনে রাখতে হবে, বাইবেলে শত শত বার প্রমাণ রয়েছে যে, ৪০০০ বছরের মানব ইতিহাসে বিভিন্ন সময়ে ঈশ্বর কথা বলেছেন। তবে ঈশ্বর যে স্পষ্টভাবে কথা বলেছেন তা হচ্ছে ব্যতিক্রম- কোন নিয়ম নয়। এমন কি বাইবেলের প্রমাণ অনুসারে ঈশ্বরের কথা বলার ঘটনা সব ক্ষেত্রে এমন সুস্পষ্ট নয় যে তা হবে কণ্ঠস্বর বা আমাদের মনের মধ্যে শুনতে পাওয়া স্বর, অথবা মানসিক অনুভূতিলব্ধ স্বর।

আজকের দিনেও ঈশ্বর লোকদের সাথে কথা বলতে পারেন। প্রথমত, ঈশ্বর তাঁর বাক্যের মধ্য দিয়ে কথা বলেন (২ তীমথিয় ৩:১৬-১৭)। যিশাইয় ৫৫:১১ পদ আমাদের বলেছে, “ঠিক তেমনি আমার মুখ থেকে বের হওয়া বাক্য নিষ্ফল হয়ে আমার কাছে ফিরে আসবে না, বরং তা আমার ইচ্ছামত কাজ করবে আর যে উদ্দেশ্যে আমি পাঠিয়েছি তা সফল করবে।” বাইবেল হচ্ছে ঈশ্বরের বাক্য, যার সবটাই আমাদের উদ্ধার পাবার জন্য এবং খ্রীষ্টিয়ান জীবন-যাপনের জন্য জানা প্রয়োজন। ২ পিতর ১:৩ পদ বলেছে, “যিনি তাঁর মহিমা ও তাঁর গুণের দ্বারা আমাদের ডেকেছেন, তাঁকে গভীর ভাবে জানবার মধ্য দিয়েই তাঁর ঈশ্বরীয় শক্তি আমাদের এমন সব দান দিয়েছে যার দ্বারা আমরা ঈশ্বরের প্রতি ভক্তিপূর্ণ জীবন কাটাতে পারি।”

কোন ঘটনার মধ্য দিয়ে ঈশ্বর আমাদের সাথে “কথা” বলতে পারেন- যেমন, তিনি আমাদের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে কথা বলে পরিচালনা দিতে পারেন। তাছাড়া, ঈশ্বর আমাদের বিবেকের মাধ্যমে ভাল ও মন্দ বুঝবার জ্ঞানও দান করেন (১ তীমথিয় ১:৫; ১ পিতর ৩:১৬)। ঈশ্বর তাঁর মত করে চিন্তা-ভাবনা করতে আমাদের মনকে গড়ে উঠতে প্রস্তুত করেন (রোমীয় ১২:২)। ঈশ্বর আমাদের জীবনে এমন অনেক ঘটনা ঘটান যেন তার মধ্য দিয়ে তিনি আমাদের পরিচালনা দিতে পারেন, আমাদের পরিবর্তন করতে পারেন এবং আত্মিকভাবে বেড়ে উঠতেও সাহায্য করতে পারেন (যাকোব ১:২-৫; ইব্রীয় ১২:৫-১১)। ১ পিতর ১:৬-৭ পদ আমাদের মনে করিয়ে দেয়, “অবশ্য যদিও কিছুকালের জন্য নানা পরীক্ষার মধ্য দিয়ে হয়তো এখন তোমাদের দুঃখ পেতে হচ্ছে, তবুও উদ্ধার পাবার আশায় তোমাদের মন আনন্দে ভরে উঠছে। এই সব পরীক্ষা আসে যেন তোমাদের বিশ্বাস খাঁটি বলে প্রমাণিত হয়, আর তার ফলে যীশু খ্রীষ্ট প্রকাশিত হবার সময়ে তোমরা প্রশংসা গৌরব ও সম্মান পাও। যে সোনা ক্ষয় হয়ে যাবে তাকেও আগুনে খাঁটি করে নেওয়া হয়; কিন্তু তোমাদের বিশ্বাসের দাম তো সেই সোনার চেয়ে আরও বেশী।”

ঈশ্বর কোন কোন সময় লোকদের সাথে স্পষ্ট ভাষায় কথা বলে থাকেন। এতে সন্দেহ করারও বেশ কারণ থাকে, যদি কখনও বা এরকম ঘটে এবং কেউ কেউ তা দাবী করে থাকে। তাছাড়া, ঈশ্বর কখনও বা বাইবেলের সময়েও ব্যতিক্রম হিসাবে কথা বলেছেন, সাধারণভাবে নয়। যদি কেউ দাবী করে যে ঈশ্বর তার সাথে কথা বলেছেন, তাহলে তার কথা বাইবেলের বলা কথায় তুলনা করতে হবে। যদি ঈশ্বর আজকের দিনেও কথা বলে থাকেন, তাহলে সেই কথা তাঁর বাইবেলে বলা কথার সাথে পূর্ণভাবে ঐক্যমত্য থাকতে হবে (২ তীমথিয় ৩:১৬-১৭)। ঈশ্বর কখনও বিপরীতধর্মী কথা বলেন না।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



ঈশ্বর কি আজকের দিনেও আমাদের সাথে কথা বলেন?