মন্দ আত্মাদের সম্বন্ধে বাইবেল কি বলে?



প্রশ্ন: মন্দ আত্মাদের সম্বন্ধে বাইবেল কি বলে?

উত্তর:
মন্দ আত্মারা হলো পতিত স্বর্গদূত যেভাবে প্রকাশিত বাক্য ১২:৯ পদে উল্লেখ করা হয়েছেঃ “তখন সেই বিরাট দানবকে ও তার সঙ্গে তার দূতদের পৃথিবীতে ফেলে দেওয়া হল। এই দানব হল সেই পুরানো সাপ যাকে দিয়াবল বা শয়তান বলা হয়। সে পৃথিবীর সমস্ত লোককে ভুল পথে নিয়ে যায়।” স্বর্গ থেকে পতিত শয়তান বা দিয়াবল যাকে প্রতীকরূপে যিশাইয় ১৪:১২-১৫ এবং যিহিষ্কেল ২৮:১২-১৫ পদে বর্ণনা করা হয়েছে। যখন তাকে স্বর্গ থেকে ফেলে দেওয়া হলো তখন সে দেখতে পেল যে, তার সাথে তার কিছু সঙ্গী দূতও আছে। প্রকাশিত বাক্য ১২:৪ পদ অনুযায়ী এরা সংখ্যায় ছিল মোট দূতের এক তৃতীয়াংশ। যিহূদা ১:৬ পদেও এই পতিত স্বর্গদূতদের বিষয়ে উল্লেখ আছে যারা পাপ করেছিল। সুতরাং এটা বাইবেল সম্মত যে, মন্দ আত্মারা হলো পতিত স্বর্গদূত যারা একই সঙ্গে দিয়াবল বা শয়তানও বটে এবং যারা ঈশ্বরের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করার মত জঘন্য পাপ কাজকে বেছে নিয়েছিল।

ইতোমধ্যে কিছু সংখ্যক মন্দ আত্মাদের তাদের পাপের কারণে বন্দি করে রাখা হয়েছে, “. . . চিরকালের জন্য অন্ধকারে বেঁধে রেখেছেন” (যিহূদা ১:৬ পদের শেষাংশ)। অন্যান্য মন্দ আত্মাদের ইতস্ততঃ ভ্রমণ বা ঘুরে বেড়ানোর জন্য ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এদের সম্পর্কে ইফিষীয় ৬:১২ পদে বলা হয়েছে যে, “আমাদের এই যুদ্ধ তো কোন মানুষের বিরুদ্ধে নয়, বরং তা অন্ধকার রাজ্যের সব শাসনকর্তা ও ক্ষমতার অধিকারীদের বিরুদ্ধে, অন্ধকার জগতের শক্তিশালী আত্মাদের আর আকাশের সমস্ত মন্দ আত্মাদের বিরুদ্ধে” (কলসীয় ২:১৫ দেখুন)। আজও মন্দ আত্মারা শয়তান বা দিয়াবলকে তাদের নেতা হিসাবে মান্য করে এবং ঈশ্বরের পরিকল্পনা ব্যর্থ করতে এবং ঈশ্বরের লোকদের পথ রোধ করতে পবিত্র আত্মাদের সাথে যুদ্ধ করছে (দানিয়েল ১০:১৩ পদ)।

এই অপবেদবতা যারা আত্মাবিশিষ্ট তাদের মানুষের দেহের উপর কর্তৃত্ব করার ক্ষমতা আছে। মন্দ আত্মার দখলদারিত্ব তখনই ঘটে যখন কোন ব্যক্তির দেহ পুরোপুরিভাবে মন্দ আত্মার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। কিন্তু এমনটি কখনও ঈশ্বরের কোন সন্তানের ক্ষেত্রে ঘটতে পারে না যখন পবিত্র আত্মা কোন খ্রীষ্টিবিশ্বাসীর অন্তরে বা হৃদয়ে বাস করেন (১যোহন ৪:৪ পদ)।

যীশু তাঁর জাগতিক পরিচর্য়া কাজের সময় অনেক মন্দ আত্মাদের মুখোমুখি হয়েছিলেন। অবশ্যই তাদের কারো শক্তি খ্রীষ্টের শক্তির মত ছিল না। “সন্ধ্যা হলে পর লোকেরা মন্দ আত্মায় পাওয়া অনেককে যীশুর কাছে নিয়ে আসল। তিনি মুখের কথাতেই সেই আত্মাদের ছাড়ালেন . . . “ (মথি ৮:১৬ পদ)। মন্দ আত্মার উপর যীশুর যে ক্ষমতা বিদ্যমান তা প্রমাণ করে যে, সত্যিই তিনি ঈশ্বরের পুত্র ছিলেন (লূক ১১:২০ পদ)। যে সব মন্দ আত্মারা যীশুর মুখোমুখি হয়েছিল তারা সবাই জানতো যীশু কে এবং তাঁকে প্রচন্ড ভয়ও পেয়েছিল। “. . . হে ঈশ্বরের পুত্র, আমাদের সঙ্গে আপনার কি দরকার?” মন্দ আত্মা চিৎকার করে বলল, “সময় না হতেই কি আপনি আমাদের যন্ত্রণা দিতে এখানে এসেছেন?” (মথি ৮:২৯ পদ)। মন্দ আত্মারা এটা খুব ভালোভাবে জানে যে, তাদের শেষ সময় খুবই কষ্টের বা দুর্দশাপূর্ণ হবে।

শয়তান এবং তার মন্দ আত্মারা এখন ঈশ্বরের কাজ ধ্বংস করার এবং যাদের পারা যায় তাদের সাথে প্রতারণা করার দিকে মনোযোগ দিচ্ছে (১পিতর ৫:৮; ২করিন্থীয় ১১: ১৪-১৫ পদ)। অপদেবতা বা মন্দ আত্মাদের এভাবে বর্ণনা করা হয়েছেঃ মন্দ আত্মা (মথি ১০:১ পদ), অশুচি আত্মা (মার্ক ১:২৭ পদ), শয়তানের দূতগণ (প্রকাশিত বাক্য ১২:৯ পদ), শয়তান ও তার মন্দ আত্মা জগতকে প্রতারিত করে ((২করিন্থীয় ৪:৪ পদ), মিথ্যা বা ভ্রান্ত ধর্মমত প্রচারকারী (২করিন্থীয় ১২:৭; ১পিতর ৫:৮ পদ), এবং পবিত্র দূতদের প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী (প্রকাশিত বাক্য ১২:৪-৯ পদ)।

মন্দ আত্মা অর্থাৎ পতিত স্বর্গদূতেরা হলো ঈশ্বরের শত্রু। এরা হলো পরাজিত শত্রু। খ্রীষ্ট “মহাকাশের সমস্ত মন্দ শাসনকর্তা ও ক্ষমতার অধিকারীদের ক্ষমতা নষ্ট করেছেন” এবং তিনি “ক্রুশের মধ্য দিয়ে তাদের উপর জয়লাভ করেছেন এবং সকলের সামনে তাদের অসম্মানিত করেছেন” (কলসীয় ২:১৫ পদ)। যদি আমরা নিজেদের ঈশ্বরের কাছে সমর্পণ করি এবং শয়তানকে প্রতিরোধ করি তাহলে আমাদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই। কারণ “এই জগতে যে আছে, তার চেয়ে যিনি তোমাদের অন্তরে আছেন তিনি মহান” (১যোহন ৪:৪ পদ)।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



মন্দ আত্মাদের সম্বন্ধে বাইবেল কি বলে?