মন্ডলীর উদ্দেশ্য কি?



প্রশ্ন: মন্ডলীর উদ্দেশ্য কি?

উত্তর:
প্রেরিত ২:৪২ পদটিতে মন্ডলীর উদ্দেশ্য সম্পর্কিত বক্তব্য বিবেচনা করা যায়: “সেই লোকেরা প্রেরিতদের শিক্ষা শুনত, তাদের সংগে এক হয়ে প্রভুর ভোজ গ্রহণ করত এবং প্রার্থনা করে সময় কাটাত।” এই পদ অনুসারে, মন্ডলীর উদ্দেশ্য বা করণীয় কাজ হচ্ছে ১) বাইবেলের শিক্ষা গ্রহণ, ২) বিশ্বাসীদের একসাথে সহভাগিতা, ৩) প্রভুর ভোজ গ্রহণ এবং ৪) প্রার্থনা করে সময় কাটানো।

মন্ডলীর কাজ বাইবেল মতবাদ শিক্ষা দেওয়া, যেন আমরা শক্ত বিশ্বাসে ভিত্তি গাঁথি। ইফিষীয় ৪:১৪ পদে বলা হয়েছে, “লোকে দুষ্ট বুদ্ধি খাটিয়ে অন্যদের ভুল পথে নিয়ে যাবার জন্য যে ভুল শিক্ষা দেয়, সেই ভুল শিক্ষার মধ্যে আমরা বাতাসে দুলে ওঠা ঢেউয়ের মত এদিকে সেদিকে দুলতে থাকব না।” মন্ডলী হচ্ছে সহভাগিতার স্থান, যেখানে খ্রীষ্টিয়ানেরা একে অন্যের প্রতি ভক্তিভাব দেখাতে পারে এবং একে অন্যের প্রতি সম্মান দেখাতে পারে (রোমীয় ১২:১০), একে অন্যকে উপদেশ দিতে পারে (রোমীয় ১৫:১৪), একে অন্যের প্রতি দয়া ও সহানুভূতি দেখাতে পারে (ইফিষীয় ৪:৩২), একে অন্যকে উৎসাহ দিতে পারে (১ থিষলনীকীয় ৫:১১) এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, একে অন্যকে ভালবাসতে পারে (১ যোহন ৩:১১)।

মন্ডলী এমন একটি স্থান, যেখানে বিশ্বাসীরা প্রভুর ভোজ অনুষ্ঠান পালন করে, খ্রীষ্টের মৃত্যু এবং আমাদের জন্য তাঁর রক্ত ঝরানো স্মরণ করতে সাহায্য করে (১ করিন্থীয় ১১:২৩-২৬)। “রুটি ভাংগা” বিষয়ে ধারণাটি একসাথে মিলে খাওয়া-দাওয়া সম্পর্কটি তুলে ধরে (প্রেরিত ২:৪২)। মন্ডলীর সহভাগিতা প্রচারে এটা আরো একটা উদাহরণ। প্রেরিত ২:৪২ পদ অনুসারে মন্ডলীর প্রধান কাজ হচ্ছে প্রার্থনা করা। মন্ডলী এমন এক স্থান, যেখানে প্রার্থনা করতে সাহায্য করে, প্রার্থনা করতে শিক্ষা দেয় এবং প্রার্থনা অভ্যাস করতেও শিক্ষা দেয়। ফিলিপীয় ৪:৬-৭ পদ আমাদের উৎসাহ দিয়েছে, “কোন বিষয় নিয়ে উতলা হোয়ো না, বরং তোমাদের সমস্ত চাওয়ার বিষয় ধন্যবাদের সংগে প্রার্থনার দ্বারা ঈশ্বরকে জানাও। তার ফলে, ঈশ্বরের দেওয়া যে শান্তির কথা মানুষ চিন্তা করেও বুঝতে পারে না, খ্রীষ্ট যীশুর মধ্য দিয়ে সেই শান্তি তোমাদের অন্তর ও মনকে রক্ষা করবে।”

মন্ডলীকে আরো একটি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, তা হল: যীশু খ্রীষ্টের দ্বারা পাওয়া পরিত্রাণ বা উদ্ধারের সুখবর প্রচার করা (মথি ২৮:১৮-২০; প্রেরিত ১:৮)। কথায় ও কাজে সুখবর প্রচারে বিশ্বস্ত থাকতে মন্ডলীকে আহ্বান করা হয়েছে। মন্ডলী হচ্ছে সমাজের মধ্যে থাকা একটা “আলোক স্তম্ভ”, তার কাজই হচ্ছে প্রভু এবং উদ্ধারকর্তা যীশু খ্রীষ্টকে দেখিয়ে দেওয়া। মন্ডলীর কাজই হচ্ছে সুখবর প্রচার করা এবং তার সদস্যদের সুখবর প্রচার করতে প্রস্তুত করা (১ পিতর ৩:১৫)।

যাকোব ১:২৭ পদে মন্ডলীর কিছু প্রধান উদ্দেশ্য বলা হয়েছে: “বিধবা ও অনাথদের দুঃখ-কষ্টের সময়ে তাদের দেখাশোনা করা আর জগতের সব নোংরামি থেকে নিজেকে পরিষ্কার রাখাই হল পিতা ঈশ্বরের চোখে খাঁটি ও সত্য ধর্ম।” মন্ডলীর দায়িত্ব যেন তারা অভাবিদের পরিচর্যা করে। তার অর্থ, শুধু সুখবর প্রচার করা নয়, কিন্তু যখন যেখানে প্রয়োজন, সেখানে জাগতিক প্রয়োজনও মিটানোর চেষ্টা করা (খাবার-দাবার, কাপড়-চোপড়, আশ্রয়)। মন্ডলী আবার বিশ্বাসীদের খ্রীষ্টে পরিপক্ক করে তুলতে পারে, যেন বিশ্বাসীরা পাপের উপরে বিজয়ী হতে পারে এবং জগতের মন্দতা থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে পারে। বাইবেলের শিক্ষা দিয়ে এবং খ্রীষ্টিয়ান সহভাগিতার মাধ্যমে তা সম্ভব হয়।

তাহলে- মন্ডলীর উদ্দেশ্য কি? করিন্থীয় বিশ্বাসীদের কাছে পৌল একটা উত্তম উদাহরণ দিয়েছিলেন। মন্ডলী হচ্ছে এই পৃথিবীতে ঈশ্বরের হাত, মুখ এবং পা- মন্ডলী হচ্ছে খ্রীষ্টের দেহ (১ করিন্থীয় ১২:১২-২৭)। যীশু খ্রীষ্ট এই পৃথিবীতে থাকতে যা করেছিলেন, আমাদেরও তা-ই করতে হবে। মন্ডলী মানে হচ্ছে “খ্রীষ্টিয়ান”, “খ্রীষ্টের মত” এবং “খ্রীষ্টকে অনুসরণ”।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



মন্ডলীর উদ্দেশ্য কি?