মহাকষ্ট কি? আমরা কিভাবে জানতে পারি যে, এটা সাত বছরব্যাপী স্থায়ী হবে?



প্রশ্ন: মহাকষ্ট কি? আমরা কিভাবে জানতে পারি যে, এটা সাত বছরব্যাপী স্থায়ী হবে?

উত্তর:
‘মহাকষ্ট’ বা ‘ভীষণ সময়’ হচ্ছে সাত বছরব্যাপী ভবিষ্য’ একটা সময়কাল যখন ঈশ্বর সমস্ত পৃথিবী হতে ইস্রায়েল জাতিকে এক জায়গায় একত্রিত করার কাজ শেষ করবেন এবং অবশিষ্ট বিশ্বকে বিচার করার কাজ চূড়ান্ত করবেন। মন্ডলী (খ্রীষ্টবিশ্বাসীবর্গের মিলনস্থল) যারা প্রভু যীশুর লোকদের নিজ নিজ পাপের শাস্তি হতে রক্ষা করতে তাঁর (প্রভু যীশু) পক্ষে কাজ করেছেন তারা সাত বছরের মহাকষ্টের সময় এই জগতে থাকবেন না। এক মুহূর্তের মধ্যে মন্ডলীকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে বা আকাশে তুলে নেওয়া হবে যা র্যাপচার নামে পরিচিত (১থিষলনীকীয় ৪:১৩-১৮; ১করিন্থীয় ১৫:৫১-৫৩ পদ)। পৃথিবীর উপর ঈশ্বরের যে প্রচন্ড ক্রোধ নেমে আসছে তা থেকে মন্ডলী রক্ষা পাবে (১থিষলনীকীয় ৫:৯ পদ)। এই মহাকষ্টকে পবিত্র শাস্ত্রে অন্য আরও অনেক নামে যেমন- ‘প্রভুর দিন’ (যিশাইয় ২:১২; ১৩:৬-৯; যোয়েল ১:১৫; ২:১-৩১; ৩:১৪; ১থিষলনীকীয় ৫:২ পদসমূহ); ‘সমস্যামূলক (বিপদজনক) অথবা ‘ভীষণ সময়’ (দ্বিতীয় বিবরণ ৪:৩০; সফনিয় ১:১ পদ); ‘প্রচন্ড মহাকষ্ট’ যা সাত বছরব্যাপী সময়কালের দ্বিতীয় অর্ধে ভীষণ রকমভাবে দেখা যাবে (মথি ২৪:২১ পদ); ‘যন্ত্রণার সময় বা দিন’ (দানিয়েল ১২:১; সফনিয় ১:১৫ পদ) এবং ‘যাকোবের যন্ত্রণা’ বা ‘কষ্টের সময়’ (যিরমিয় ৩০:৭ পদ)-রূপে উল্লেখ করা হয়েছে।

মহাকষ্টের উদ্দেশ্য এবং সময়কাল ভালোভাবে উপলব্ধি করার জন্য দানিয়েল ৯:২৪-২৭ পদগুলো বুঝতে পারা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এখানে “তোমার লোকদের” অর্থাৎ দানিয়েলের লোকদের বিরুদ্ধে সত্তর (৭০) সপ্তাহের কথা বলা হয়েছে। দানিয়েলের লোক বলতে যিহূদী অর্থাৎ ইস্রায়েল জাতিকে বুঝানো হয়েছে। দানিয়েল ৯:২৪ পদে ঈশ্বরের দেওয়া সময়কালের উল্লেখ রয়েছে। লেখা আছে, “সেই সময়ের মধ্যে মন্দতা বন্ধ করা হবে, অন্যায়ের শেষ হবে, পাপ ঢাকা দেওয়া হবে, চিরস্থায়ী ন্যায্যতা স্থাপন করা হবে, দর্শন ও ভবিষ্যদ্বাণী পূ্র্ণ করা হবে এবং মহাপবিত্র স্থানকে অভিষেক করা হবে।” ঈশ্বর ঘোষণা করেন যে, “সত্তর গুণ সাত” এই সময়কালের মধ্যেই এগুলো পূর্ণ করা হবে। এটি হচ্ছে সত্তর গুণ সাত বা ৪৯০ বছর (কোন কোন অনুবাদে এটিকে বছরের সত্তর সপ্তাহ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে)। দানিয়েল পুস্তকের এই অনুচ্ছেদের অন্য অংশে এই বিষয়টি সমর্থন করা হয়েছে। ২৫ ও ২৬ পদে দানিয়েলকে বলা হয়েছিল যে, সাত সপ্তাহ এবং বাষট্টি সপ্তাহ (মোট ৬৯ সপ্তাহ) পরে মশীহকে মেরে ফেলা হবে অর্থাৎ শুরু থেকে যিরূশালেম নগরী পুনর্গঠন পর্য়ন্ত। অন্য কথায়, ঊনসত্তর গুণ সাত (৪৮৩ বছর) পর যিরূশালেম নগরী পুনর্গঠনের পর মশীহকে মেরেফেলা হবে। বাইবেল বিশারদ ও ইতিহাসবেত্তারা এটা নিশ্চিত করেন যে, যিরূশালেম নগরী পুনর্গঠনের ঘোষণা প্রদানের পর থেকে যীশুকে ক্রুশে দেওয়ার সময় পর্য়ন্ত ৪৮৩ বছর পার হয়ে গিয়েছিল। অধিকাংশ বাইবেল পন্ডিতগণ দানিয়েলের বলা সত্তর গুণ সাত বছর সংক্রান্ত উপরোক্ত বিষয়টি বুঝবার ক্ষেত্রে যীশুর দ্বিতীয় আগমন (ভবিষ্যৎ ঘটনা) সম্পর্কে উদাসীন।

যিরূশালেম নগরী পুনর্গঠনের সময় হতে মশীহকে ক্রুশে হত্যা করা পর্য়ন্ত ৪৮৩ বছর পার হওয়ার সাথে সাথে দানিয়েল ৯:২৪ পদে উল্লেখিত সাত বছর সময়কাল পূর্ণ হবে যেখানে লেখা আছে, “মন্দতা বন্ধ করা হবে, পাপ ঢাকা দেওয়া হবে, চিরস্থায়ী ন্যায্যতা স্থাপন করা হবে, দর্শন ও ভবিষ্যদ্বাণী পূর্ণ করা হবে এবং মহাপবিত্র স্থানকে অভিষেক করা হবে।” এই সাত বছর সময়কালই “মহাকষ্টের সময়কাল” হিসাবে পরিচিত। এই সেই সময় যখন ঈশ্বর পাপজনিত কারণে ইস্রায়েল জাতির বিচার কাজ সম্পন্ন করবেন।

দানিয়েল ৯:২৭ পদ মহাকষ্টের সময়কাল সংক্রান্ত কিছু বিশেষ চিহ্ন বা লক্ষণের উপর আলোকপাত করে। সেখানে লেখা আছে, “সাত বছরের জন্য অনেকের সঙ্গে সেই শাসনকর্তা সন্ধি করবে, কিন্তু সাত বছরের মাঝখানেই সে পশু ও শস্য উৎসর্গ করা বন্ধ করে দেবে। সেই ধ্বংসকারীর উপরে ঠিক করা শাস্তি সম্পূর্ণভাবে ঢেলে না দেওয়া পর্য়ন্ত উপাসনা-ঘরের মধ্যে সে সর্বনাশা ঘৃণার জিনিষ রাখবে।” এই পদে যে বিষয়ের প্রতি ইঙ্গিত করা হয়েছে মথি ৪:১৫ পদে যীশু সেটিকে “সর্বনাশা ঘৃণার জিনিষ” বলেছেন এবং প্রকাশিত বাক্য ১৩ অধ্যায়ে আবার সেটিকে “পশু বা জন্তু” বলে উল্লেখ করা হয়েছে। দানিয়েল ৯:২৭ পদ আমাদের এই কথা বলে যে, এই পশু অন্যান্যদের সাথে সাত বছরের জন্য চুক্তি বা নিয়ম করবে, কিন্তু এই সময়কালের মাঝামাঝি সময়ে (মহাকষ্টের মাঝখানে অর্থাৎ সাড়ে তিন বছর) ঐ চুক্তি বাতিল করবে এবং কোন কিছু উৎসর্গ করা বন্ধ করে দেবে। প্রকাশিত বাক্য ১৩ অধ্যায়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা করা হয়েছে যে, ঐ জন্তুটা মন্দিরের মধ্যে নিজেকে স্থাপন করে তার নিজের এমন একটা ভাবমূর্তি দাঁড় করাবে যাতে পৃথিবীর সমস্ত লোক তার আরাধনা করতে বাধ্য হয়। প্রকাশিত বাক্য ১৩:৫ পদে উল্লেখ করা হয়েছে যে, এই সময়কালটা হবে বিয়াল্লিশ মাসের জন্য অর্থাৎ সাড়ে তিন বছরের জন্য। যেহেতু দানিয়েল ৯:২৭ পদে মহাকষ্টের মাঝামাঝি সময়ের কথা এবং প্রকাশিত বাক্য ১৩:৫ পদে ঐ পশু যে সব কাজ করবে সেই সময়কাল বুঝাতে ৪২ মাসের কথা বলা হয়েছে সেহেতু এটা বুঝতে পারা খুবই সহজ যে, এই সবের মোট সময়কাল হচ্ছে চুরাশি মাস বা সাত বছর। তাছাড়া দানিয়েল ৭:২৫ পদে উল্লেখিত দিন, দিনগুলো, অর্ধ দিন (দিন= ১ বছর, দিনগুলো= ২ বছর এবং অর্ধ দিন= ১/২ বছর; মোট ৩ ১/২বছর)- এগুলোও “মহাকষ্টের সময়কাল”-কে নির্দেশ করে। এটা হচ্ছে মহাকষ্টের সময়কালের শেষের অর্ধেক সময় যখন ঐ পশু বা জন্তু ক্ষমতায় অবস্থান করবে।

“মহাকষ্ট” সম্পর্কে আরও জানার জন্য উল্লেখযোগ্য বাইবেল পদগুলো হলো- প্রকাশিত বাক্য ১১:২-৩ পদ যেখানে ১২৬০ দিন ও ৪২ মাসের কথা এবং দানিয়েল ১২:১১-১২ পদে ১২৯০ ও ১৩৩৫ দিনের কথা উল্লেখ আছে। মহাকষ্টের মাঝামাঝি সময়টা বুঝাতে এই দিনগুলোর মধ্যে একটা অদ্ভুত মিল রয়েছে। হয়তো বা দানিয়েল ১২ অধ্যায়ে অতিরিক্ত দিন হিসাবে মানবজাতির বিচারের জন্য শেষের সময়কাল (মথি ২৫:৩১-৪৬ পদ) এবং খ্রীষ্টের হাজার বছরের রাজত্বের (প্রকাশিত বাক্য ২০:৪-৬ পদ) কথা যুক্ত করা হয়েছে।



বাংলা হোম পেজে ফিরে যান



মহাকষ্ট কি? আমরা কিভাবে জানতে পারি যে, এটা সাত বছরব্যাপী স্থায়ী হবে?